img
প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় গাজীপুরের কোনাবাড়ী এলাকায় কলেজছাত্রের ছুরিকাঘাতে এক কলেজছাত্রী খুন হয়েছেন। গতকাল দুপুরে এ ঘটনায় অভিযুক্ত কলেজছাত্রকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা। ঘটনাস্থল থেকে রক্তমাখা ছুরি উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত শারমিন আক্তার লিজা সিটি করপোরেশনের কোনাবাড়ীর মধ্য আমবাগ এলাকার সফিকুল ইসলামের মেয়ে এবং স্থানীয় ক্যামব্রিজ কলেজের একাদশ শ্রেণির মানবিক বিভাগের ছাত্রী। আটক মোস্তাকিন রহমান সিটি করপোরেশনের জালামার্কেট এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে। সে স্থানীয় লিংকন মেমোরিয়াল কলেজের শিক্ষার্থী। প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের স্বজনরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে অভিযুক্ত মোস্তাকিন লিজাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। কিন্তু লিজা সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে। এরই প্রতিশোধ নিতে গতকাল দুপুরে মোস্তাকিন কোনাবাড়ীর কাঁচাবাজার এলাকায় তার পথরোধ করে। এ সময় লিজাকে অতর্কিত ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করে মোস্তাকিন। এতে গুরুতর আহত হন লিজা। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উত্তরার বাংলাদেশ মেডিকেলে নিয়ে যান স্বজনরা। কিন্তু অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকার একটি হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান লিজা। এ ঘটনায় অভিযুক্ত মোস্তাকিনকে স্থানীয় জনতা আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) কোনাবাড়ী থানার ওসি এমদাদুল হক জানান, প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান নাকি পূর্ব শত্রুতার জেরে এই হত্যাকা টি ঘটেছে তা এখনো জানা যায়নি। অভিযুক্ত মোস্তাকিনকে রক্তমাখা ছুরিসহ আটক করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ