img

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ এনে পুনর্নির্বাচনের দাবিতে ক্যাম্পাসে ভুখা মিছিল করেছেন অনশনে থাকা প্রার্থী ও শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার বিকেল ৪টায় রাজু ভাস্কর্য থেকে মিছিল শুরু হয়। ভিসির বাসভবনের রাস্তা, মল চত্বর, কলাভবন ও কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে দিয়ে ঘুরে ফের রাজু ভাস্কর্যে এসে মিছিল শেষ হয়। পুনর্নির্বাচনের দাবিতে অনশন অব্যাহত রেখেছেন সাত শিক্ষার্থী। শুক্রবার  তাদের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন ডাকসুর নতুন ভিপি নুরুল হক নুর।

অনশন অব্যাহত: অনশনরত শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। চতুর্থ দিনে চার শিক্ষার্থী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নেন। হাসপাতাল থেকে স্যালাইনসহ শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তারা ফের অনশনে বসেন। তারা হলেন মীম আরাফাত মানব, আল মাহমুদ তাহা, শোয়েব মাহমুদ ও রবিউল ইসলাম।

গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পাঁচ শিক্ষার্থী অনশন শুরু করেন। পরে বিভিন্ন সময়ে তাদের সঙ্গে আরও তিনজন যোগ দেন। অনশনের চতুর্থ দিন পার হলেও প্রশাসনের কেউ এখনও তাদের সঙ্গে দেখা করতে যাননি। অনশনকারী গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ছাত্রী রাফিয়া তামান্না বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কেউ এখনও তাদের সঙ্গে দেখা করেননি। অনশন চলবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন করার অধিকার সবারই আছে। অসুস্থ হলে হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছি। প্রশাসন চায় তারা আলোচনার আহ্বান জানাক।'

এদিকে  শুক্রবার ডাকসুর সাবেক ভিপি সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম টিএসসিতে এক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পর অনশনকারীদের খোঁজখবর নিতে যান। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, প্রশাসন এমন একটি নির্বাচন করেছে, যেখানে একজন সাবেক ভিপি হিসেবে আমি লজ্জা পাচ্ছি।

অনশনকারীদের সঙ্গে ভিপি নুরের একাত্মতা: এদিকে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে দেখা করেন ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর। অনশনকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, 'আমি আপনাদের সঙ্গে আছি।' এ সময় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাকর্মীরাও সঙ্গে ছিলেন।

সেখানে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ভিপি নুর বলেন, 'চারদিন ধরে আমার ভাইবোনেরা এখানে অনশন করছেন। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের সঙ্গে একবারের জন্য কথা বলতেও আসেনি, দেখতেও আসেনি। এতে হতাশ হয়েছি।'

এ সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে নুর বলেন, 'অনশনকারীদের সঙ্গে দেখা করতে এসেছি। এখানে কিছু ভাই আছেন  যারা মঙ্গলবার বিকেল ৫টা থেকে অনশন করছেন। তাদের দাবি হচ্ছে পুনর্নির্বাচন। তাদের দাবির সঙ্গে অনেক আগেই একমত হয়েছি এবং প্রশাসনকেও বলেছি, যে অনিয়ম হয়েছে সে জন্য পুনর্নির্বাচনের আয়োজন করা হোক। ন্যায্য দাবির কথা একজন বললেও সেটা আমলে নেওয়া উচিত। এতদিন আসতে পারিনি কারণ নিজেও অসুস্থ ছিলাম।'

এদিকে  শনিবার  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গণভবনে যাচ্ছেন কি-না– সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'এই অনিয়ম এবং কারচুপির পরও যারা বিজয়ী হয়েছেন তাদের প্রধানমন্ত্রী চায়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। যেহেতু তিনি ডেকেছেন তাই আমি যাওয়ার পক্ষে। সমস্যাগুলোর কথা তার কাছে তুলে ধরব। তবে আন্দোলনকারী ভাইবোনদের সঙ্গে কথা বলেই সিদ্ধান্ত নেব।'

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ