img

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অভিন্ন পদ্ধতিতে উপাধ্যক্ষ, অধ্যক্ষ ও কর্মচারী নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বৃহস্পতিবার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরে (মাউশি) এক মতবিনিময় সভায় শিক্ষা কর্মকর্তারা তাদের সমস্যা তুলে ধরলে মন্ত্রী এমন নির্দেশনা দেন।

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল  এদিন বেলা সাড়ে ১১টায় শিক্ষা ভবনে আসেন। তারা সন্ধ্যা পর্যন্ত সংশ্নিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। মন্ত্রী হওয়ার পর এটাই তাদের প্রথম শিক্ষা অধিদপ্তরে আসা। 

সভায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব সোহরাব হোসেন, মাউশির মহাপরিচালক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুকসহ বিভিন্ন শাখা ও বিভাগ এবং মাউশির অধীন দপ্তর-সংস্থার প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় মাউশির মহাপরিচালক ও বিভিন্ন সংস্থার প্রধানরা তাদের সমস্যা ও শিক্ষার মানোন্নয়নের গৃহীত নানা কার্যক্রমের চিত্র মন্ত্রীদের সামনে তুলে ধরেন। এ সময় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) মাধ্যমে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের মতো অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষ ও কর্মচারী নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে হবে।

সভায় আরও জানানো হয়, অধিদপ্তরের অধীনে থাকা ৯টি আঞ্চলিক অফিসের উপপরিচালক পদ প্রায় ৩০ বছর ধরে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। 

এ বিষয়ে দীপু মনি বলেন, এটি একটি অদ্ভুত বিষয়। এতদিন কেন আঞ্চলিক অফিসের প্রধানদের ভারপ্রাপ্ত থেকে ভারমুক্ত করা হয়নি? মন্ত্রী বলেন, শুধু আঞ্চলিক অফিসে নয়, শিক্ষা খাতে যেখানেই এমন সমস্যা রয়েছে, তা খতিয়ে দেখে দ্রুত সমাধান করতে হবে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে শিক্ষা সচিব সোহবার হোসেনকে নির্দেশ দেন তিনি। এ সময় সচিব বলেন, একটি কমিটি গঠনের মাধ্যমে সমস্যা চিহ্নিত করে তা সমাধান করা হবে।

জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমিতে (নায়েম) আবাসন সংকট থাকায় ধীরগতিতে সরকারি শিক্ষক প্রশিক্ষণ কার্যক্রম হয়ে থাকে বলে সভায় জানানো হয়। প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের ক্ষমতা বাড়াতে নায়েমে দ্রুত একটি ভবন নির্মাণের নির্দেশনা দেন শিক্ষামন্ত্রী।

আদালতে ৪৮টি রিট মামলা হওয়ায় সরকারি স্কুল-কলেজে কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না এ বিষয়টি তুলে ধরা হলে দীপু মনি বলেন, সব পদের বিপরীতে আদালতে রিট বা মামলা হয়েছে তা স্থগিত রেখে নতুন করে নিয়োগ কার্যক্রম শুরু করতে হবে। এজন্য নতুন করে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পরামর্শও দেন শিক্ষামন্ত্রী।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ