img

 গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক এলাকার তিন বন্ধু সাকিব, জনি, রাজা। তারা দুরন্তপনায় মেতে থাকতো সবসময়। বেশিরভাগ সময়ই কাটতো একসাথে। তবে ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে সড়ক দূর্ঘটনায় থেমে যায় তিন বন্ধুর জীবন প্রদীপ। স্বপ্ন ভেঙ্গে চুরমার হয়ে যায় তাদের পরিবারের। একই এলাকার তিন বন্ধুর এমন মৃত্যুতে শোকে স্থব্ধ গোটা কালিয়াকৈর বাসী।
নিহত তিন বন্ধুরা হলো- জামালপুর জেলার ইসলামপুর উপজেলার পচাবহলা এলাকার জয়নাল আবেদীনের ছেলে ভাওয়াল বদরে আলম সরকারী কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী জাকিরুল ইসলাম জনি (১৯)। তারা কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক ইউনিয়নের দক্ষিণ মৌচাক এলাকায় সরকার ভিলা নামে এক বাসায় ভাড়া থাকতো। টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার রেহাইমীর কুটিয়া গ্রামের নুর হোসেনের ছেলে ও মৌচাক এলাকার অধ্যাপক শাহাজাহন আলী কলেজের ছাত্র এইচএসসি পরীক্ষার্থী রাশেদুল ইসলাম রাজা (১৮)। তারাও দক্ষিণ মৌচাক গ্রামের ফরহাদ মিয়ার একটি কক্ষ ভাড়া নিয়ে বাসবাস করতেন এবং কালিয়াকৈর উপজেলার মৌচাক ইউনিয়নের দক্ষিণ মৌচাক এলাকার মৃত মোজাহার মিয়ার ছেলে ও ভাষা শহীদ আব্দুর জাব্বার আনসার ভিডিপি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের ছাত্র এইচএসসি পরীক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান সাকিব (১৮)।
গতকাল রবিবার (১০ই ফেব্রুয়ারী) সকালে স্বরসতী পূঁজায় কলেজ বন্ধ থাকায় মাহফুজুর রহমান সাকিব নিজের মোটর সাইকেলটি সার্ভিসিংয়ের জন্য তার আরো দুই বন্ধু জাকিরুল ইসলাম জনি ও রাশেদুল ইসলাম রাজাকে নিয়ে গাজীপুরের চৌরাস্তার দিকে রওনা দেয়। পথিমধ্যে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুর মহানগরের নাওজোড় এলাকার ইটাহাটা নামক স্থানে গাজীপুর থেকে ছেড়ে আসা চন্দ্রা নবীনগরগামী পলাশ পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস তাদের মোটরসাইকেলটিকে চাঁপা দেয়। এতে সড়কে ছিটকে পড়ে তিন বন্ধু। ঘটনাস্থলেই মারা যায় দুই বন্ধু। হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যায় অপর একজন।
খবর পেয়ে গাজীপুর মেট্রো পলিটন পুলিশের (বাসন থানা) পুলিশ পলাশ পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসটি আটক করে। পরে নিহতদের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহম্মদ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে।
এদিকে, একই গ্রামের পাশাপাশি তিন কলেজ বন্ধু নিহতের খবর এলাকায় পৌঁছালে গ্রামে শোকের মাতম শুরু হয়। তিনটি পরিবারের সদস্যদের কান্নায় গ্রামের আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উঠে। শত শত গ্রামবাসী ছুটে আসেন নিহতের পরিবারের সদস্যদের কাছে। দক্ষিণ মৌচাক গ্রামটি যেন স্তব্দ হয়ে যায়। শুধু তিন পরিবারের সদস্যদের কান্নায় যেন বাতাস কম্পিত হয়ে পড়ে।
বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মুক্তার হোসেন জানান, ইটহাটা এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক দিয়ে চৌরাস্তাগামী মোটরসাইকেলটি নবীনগরগামী পলাশ পরিবহণের যাত্রীবাহী একটি বাসের সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই দুইজন নিহত হয়। অপরজনকে গাজীপুর সদর হাসপাতাল কলেজে চিকিৎসার জন্য নেওয়ার পথেই মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় বাসসহ চালক ও হেলপারকে আটক করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ