img

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে নির্বাচিত কোনো জনপ্রতিনিধি শপথ নেবে না। ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক শেষে বৃহস্পতিবার এ সিদ্ধান্তের কথা সাফ জানিয়ে দেয়া হয়েছে।

তবে ঐক্যফ্রন্ট শপথ না নেয়ার সিদ্ধান্ত নিলেও শপথ নেবেন ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করা গণফোরাম নেতা সুলতান মনসুর। তিনি জানিয়েছেন- ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন না চাইলেও তিনি শপথ নেবেন, সংসদে যোগ দেবেন।

যুক্তি হিসেবে মৌলভীবাজার-২ আসন থেকে নির্বাচিত ডাকসুর সাবেক এ ভিপি বলেন, গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন প্রবীণ নেতা ও সংবিধানপ্রণেতা। তিনি তার সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। কিন্তু একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর দলের বর্ধিতসভায় ড. কামাল সংসদে যাওয়ার বিষয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত জানিয়েছিলেন। এখন তিনি তার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করলেও নিজের নির্বাচনী এলাকার ভোটারদের কাছে আমার দায়বদ্ধতা রয়েছে। সেই দায়বদ্ধতা থেকে সংসদে যাওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

সুস্থ হওয়ার পর শপথ নেবেন জানিয়ে সুলতান মনসুর বলেন, এখন আমি অসুস্থ। একটু সুস্থ হওয়ার পর নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই শপথ নেব।

ঐক্যফ্রন্টের বৃহস্পতিবারের বৈঠকে না যাওয়ার বিষয়ে সুলতান মনসুর বলেন, অসুস্থ থাকায় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠকে যেতে পারিনি। তাই বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানি না। তবে আমার দায়বদ্ধতা রয়েছে নিজের নির্বাচনী এলাকার জনগণের কাছে। তারা শতপ্রতিকূলতার মধ্যেও আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছেন। জনগণ চান দায়িত্ব পালনে সংসদে যাই। আর তার দায়িত্বও হচ্ছে নির্বাচনী এলাকার মানুষের আকাঙ্ক্ষা বাস্তবায়ন করা, তাদের পক্ষে ভূমিকা রাখা এবং তার রাজনৈতিক চিন্তা-ভাবনা ও আদর্শকে যথাযথ কাজে লাগানো। আর এসব বাস্তবায়নের জন্য একজন এমপি হিসেবে আমাকে শপথ নিতে হবে এবং জাতীয় সংসদে যেতে হবে।

ড. কামাল হোসেন সংবাদমাধ্যমে যাই বলুক না কেন, তার অবস্থান সংসদে যাওয়ার পক্ষেই থাকবে বলেও তিনি জানান সুলতান মনসুর।

বৃহস্পতিবার বিকালে রাজধানীর মতিঝিলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে ড. কামাল জানান, ঐক্যফ্রন্টের কেউ শপথ নেবে না।

এর আগেও গণফোরামের দুই নির্বাচিত সংসদ সদস্য শপথ নেবেন না বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন দলটির সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেন, বিষয়টি তো আগেই স্পষ্ট করে বলে দেয়া হয়েছে যে, তারা (গণফোরামের দুই সংসদ সদস্য) শপথগ্রহণ করবেন না।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ