img

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় ও চা-চক্র অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কেউ যাবেন না। এ বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানাতে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে চিঠি পৌঁছে দিয়েছে ঐক্যফ্রন্টের তিন সদস্যের প্রতিনিধিদল।

শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার-২ মো. খোরশেদ আলম ঐক্যফ্রন্টের প্রতিনিধিদলের কাছ থেকে এ চিঠি গ্রহণ করেন।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য ও গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী স্বাক্ষরিত ঐক্যফ্রন্টের চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘গণভবনে ২ ফেব্রুয়ারি শুভেচ্ছা বিনিময় ও চা চক্রের আমন্ত্রণের জন্য আপনাকে (প্রধানমন্ত্রী) ধন্যবাদ। আজ জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির সভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর চা চক্রের আমন্ত্রণ অন্যতম এজেন্ডা হিসেবে আলোচিত হয়েছে। কমিটি এই চা চক্রে অংশ না নেওয়ার ব্যাপারে সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।’

চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, ‘৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের নামে প্রহসনের মাধ্যমে গঠিত সরকার কোনোভাবেই নৈতিক নয়। সেইদিন দেশের মানুষের ন্যূনতম গণতান্ত্রিক অধিকার, ভোটাধিকার প্রয়োগ করে প্রতিনিধি নির্বাচন করার ক্ষমতা হরণ করা হয়েছে। অন্যদিকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের হাজার হাজার নেতাকর্মী এখনও জেলে আছে। নতুন নতুন মামলায় আরও অসংখ্য নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আহুত চা-চক্রে অংশগ্রহণ করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়।’

প্রসঙ্গত, আগামীকাল ২ ফেব্রুয়ারি একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে যে ৭৬ দলের সঙ্গে সরকার সংলাপ করেছে, তাদের আবারও গণভবনে শুভেচ্ছা বিনিময় ও চা-চক্রের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে বৃহস্পতিবার চা-চক্রকে ‘প্রহসন’বলে অভিহিত করে বিএনপি মহাসচিব ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রার্থী ও ভুক্তভোগীদের নিয়ে গণশুনানি হবে।

তিনি বলেন, ভোট ডাকাতির পর চা-চক্র প্রহসন ছাড়া কিছুই নয়। তাই সেখানে যাওয়ার প্রয়োজন আছে বলে মনে করি না।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ