img

রাজধানীর উত্তরার বাসা থেকে অভিনেতা ও পরিচালক তানভীর হাসান সুমনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে পুলিশ ও স্বজনদের ধারণা, গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন সুমন। 

তিনি একাধারে মঞ্চ, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রে কাজ করতেন। শুক্রবার দুপুরে তার লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়।

ঢাকা মহানগর পুলিশের উত্তরা বিভাগের উপকমিশনার নাবিদ কামাল শৈবাল সমকালকে বলেন, ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন ছাড়া সুমনের মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার সুযোগ নেই। স্বজনদের ভাষ্য, তিনি দীর্ঘদিন মানসিকভাবে অসুস্থ ছিলেন। তবে এ-সংক্রান্ত কোনো প্রমাণপত্র এখনও পাওয়া যায়নি। ঘটনাটি তদন্ত করা হচ্ছে।

উত্তরা পূর্ব থানা পুলিশ জানায়, উত্তরা-৪ নম্বর সেক্টরের ৪ নম্বর সড়কের একটি বাসায় থাকতেন তানভীর হাসান সুমন। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে তিনি নিজের ঘরে ঘুমাতে যান। এর পর বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গৃহকর্মী ঘরে ঢুকে তার ঝুলন্ত নিথর দেহ দেখতে পান। এ সময় ভয় পেয়ে তিনি চিৎকার দিয়ে ওঠেন। এর পর স্বজনরা ওই ঘরে ছুটে যান। তাদের মাধ্যমেই খবর পায় পুলিশ।

স্বজনরা জানান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর পাস করা সুমন নাটকে অভিনয়ের পাশাপাশি পরিচালনাও করেছেন। বিজ্ঞাপন নির্মাতা হিসেবে তার খ্যাতি ছিল। তিনি প্রথমে ঢাকা লিটল থিয়েটার ও পরে নাট্যকেন্দ্রের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রেও কাজ করেছেন। এ ছাড়া তিনি চিত্রশিল্পী ও ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবেও কাজ করেছেন।

উত্তরা পূর্ব থানার এসআই আবদুর রহিম জানান, সুমনের ঘরের দরজা ভেতর থেকে খোলা ছিল। পুলিশ গিয়ে তার ঝুলন্ত লাশ নামিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠায়। তার স্ত্রী ও ভগ্নিপতিসহ অপর স্বজনরা এ ঘটনাকে আত্মহত্যা বলে ধারণা করছেন। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশেরও তেমনটাই মনে হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ