img

জুনাইদ হোসেন জুয়েল :

প্রিয় বাংলাদেশ, কেমন আছ? ভাল আছ নিশ্চয়ই। তোমাকে দেখতে ইদানিং খুব খুশি খুশি মনে হয়।তোমার আকাশে লাল সবুজের পতাকা পৎ পৎ করে উড়ে।৭১ এর পুরোনো শকুনের গাড়িতে তোমার পতাকা এখন আর উড়তে দেখাই যায় না। সেজন্যই তোমাকে খুব বেশি খুশি মনে হয়। তোমার পবিত্র মাটিতে চিরে দিন দিন গড়ে উঠছে নতুন নতুন সব বাহারি অট্টালিকা, ব্রীজ,কালভার্ট আর কত কি।তোমার বুকে বসবাসরত সব মানুষগুলির আর ভাত কাপরের অভাব নেই। তোমার সীমানার ইথরে ভেসে বেড়ায় থ্রী জি ফোর জির মত অাধুনিক শক্তিশালী নেটওয়ার্ক।তোমার ছোট্ট সোনামনিরা প্রতিদিন স্কুলে যায়। বছরের শুরুতে হাতে পায় বিনা মুল্যে নতুন বই। সে বই পেয়ে সেকি আনন্দ। তা তোমাকে বোঝাতে পারব না প্রিয় বাংলাদেশ। তোমার বৃদ্ধদেরকে তুমি যে মাসিক ভাতা দাও তাতে তাদের সুখের দিন কাটে অনায়াসে। তাদের দু:খের দিন সেই কবে শেষ হয়ে গেছে। তোমাকে যারা সেদিন হায়নার হাত থেকে মুক্ত করেছিল তোমার সেই শ্রেষ্ঠ সন্তানরা ঘরে বসে ভাতা পাচ্ছে। এবং সম্মানিত হচ্ছে প্রতি পদে পদে।

সোনার বাংলাদেশ, ইতি মধ্যে তোমার প্রতিটি ঘরে ঘরে এখন বিদ্যুতের আলো জ্বল জ্বল করে জ্বলছে।তোমার বুকে এখন শুধুই আলো। তুমি কৃষককে যে দামে সার,বীজ দাও তা দিয়ে তারা ভীষন আনন্দিত। মাঠ ভরা সোনালী যে ফসল দেখতে পাও তা তোমারই দান, অবদান। কৃষানীর মুখের হাসি আর ফুরাতে চায় না। তুমি কি শুনেছ যে সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ,বোমা তোমাকে ছেড়ে আবার সেই পাকিস্তান চলে গেছে? ওরা মনে হয় আর এ দেশে আসতে পারবে না। কেমনে পারবে বল ওদেরকে যে তোমার দেশের জনগন ঘৃনা করতে শিখেছে। শুধু কি ঘৃনাই করে? রীতিমত প্রতিহত করতে সক্ষম হয়েছে। প্রানের বাংলাদেশ, ঐ যে কিছু মানুষ ঘরহীন ভাসমান ছিল না ওদের কিন্তু এখন আর ঘরের সমস্যা নেই। বিভিন্ন আবাসনে ওরা ঘর পেয়েছে। ছোট্ট আঙ্গীনা সহ।তাছাড়া বস্তিবাসিরাও আধুনিক ফ্লাট পাচ্ছে। তোমার হাসপাতালগুলি প্রতিদিন বড় হচ্ছে। মানুষ চিকিৎসা সেবা পাচ্ছে। গত দশ বছরে তোমার এই পরিবর্তন দেশে সমগ্র পৃথিবী অবাক, হতবাক। এবং বাংলাদেশ, এসব কিছু সম্ভব হয়েছে তুমি যে মহিয়সি রমনীকে আমাদের নেতৃত্বের জন্য দান করেছ সেই প্রিয় নেত্রী শেখ হাসিনার জন্য। তাকে আমাদের মাঝে নেতা হিসেবে না পেলে কোনোদিনই হয়ত এসব সম্ভব হতো না।

ধন্যবাদ বাংলাদেশ বিশ্বমানের এমন একজনকে আমাদের নেতা দান করার জন্য। তবে বাংলাদেশ, তোমার কি পরে তোমার বুকে একযোগে বোমা মেরে তোমাকে আৎকে দিয়েছিল? তোমার প্রিয় মেধাবি সন্তান এস এম কিবরিয়া, মন্জুরুল ইমাম,আহসান উল্লাহ মাষ্টার সহ কত শত জনকে ওরা হত্যা করেছিল।বুয়েট ছাত্রী সনির অকাল মৃত্যু তুমি কি ভুলে গেছ? মাহিম, ফাহিমদের মত নিস্পাপ শিশুগুলির আত্মহননের কথা তোমার কি মনে পরে না বাংলাদেশ? দশ ট্রাক অস্ত্র, নাইকোতে লুটপাট,হাওয়া ভবন,বিদ্যুতের খাম্বা এসব কি ভোলা যায়? প্রিয় বাংলা মা, তোমাকে যারা ক্ষত বিক্ষত করেছে ওরা আবার তোমার দ্বারে, তোমার সন্তানদের কাছে ভোট চাইছে। আবার তোমাকে তোমার পুরোনো চেহারায় ফিরিয়ে নিতে চায়।মা। তুমি তোমার সন্তানদের বলে দাও ওদেরকে যেন ক্ষমা না করে। তোমার ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের প্রতিটি সন্তানদের নির্দেশ দাও তোমার এই উন্নয়ন এই অগ্রগতি অব্যাহত রাখতে তারা যেন নৌকায় ভোট দেয়।

ইতি তোমার বাধ্যগত সন্তান

পদ্মা,  মেঘনা, যমুনা জয় বাংলা

 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ